Category: Rojnamcha

No comments exist

  ৭ই জানুয়ারি 

আজ সকাল থেকেই বেশ ফাঁকা ফাঁকা লাগছে, গত সপ্তাহে শেষ শনিবার ছিল পঞ্চম প্রতিদিন প্রয়াসম্‌ প্রণামের শেষ দিন, যেটা আমাদের প্রয়াসমীদের কাছে প্রায় বিজয়ার সমান। সারা বছর যেমন আমরা অপেক্ষা করে থাকি মা কবে মর্তে আসবেন এবং বিসর্জনের দিন মন খারাপ হয়ে যায়, গত শনিবার প্রণাম শেষ হওয়ার সময়ও মনের অবস্থাটা প্রায় সেইরকমই ছিল।

বিগত বেশ কয়েকমাস ধরে শনিবার মানেই ছিল - শনিবারের শোনাবেলা।

সল্টলেক ব্লকবাসীদের জন্য অডিও ড্রামা কম্পিটিশন।

বিগত দুবছর ধরে আমাদের এই প্রতিযোগিতা চলছে। ২০২২ এ সল্টলেকের ১৬টি ব্লক এই কম্পিটিশানে অংশগ্রহণ করে। গত ১৭ই ডিসেম্বর প্রয়াসম ভিসুয়াল বেসিকস্‌ থেকে সম্প্রচারিত হয়ে গিয়েছে দ্বিতীয় শনিবারের শোনাবেলার শেষ অডিও স্টোরি। তাই আজকের শনিবারের সকালটা একটু ফাঁকা ফাঁকা লাগারই কথা।

আপাতত প্রশান্তর সঙ্গে বসে ঠিক করে নিতে হবে আগামী শনিবারের শোনাবেলা কি ভাবে যাবে, দেখি প্রশান্ত কোথায় ......

 

  বিকেল ৪টে

মন ভরে গেল প্রয়াসমের প্রশংসা শুনে। আমস্টারডম নিবাসী দেবজ্যোতি বাবু আজ এসেছিলেন আমাদের সঙ্গে পরিচয় করতে। যত গল্প শোনেন ততই অবাক হন আমাদের কর্মকান্ডের কথা শুনে। প্রসঙ্গতঃ দেবজ্যোতি বাবুর সুপুত্র কিছুদিন যাবত কাজ শুরু করেছে আমাদের সঙ্গে, সদ্য পেন ইউনিভার্সিটি (পেনিসেলভিনিয়া ইউনিভার্সিটি)থেকে পড়াশুনো করে এসে।

 

দেবজ্যোতি বাবুকে যখন একদিকে ঘুরিয়ে দেখাচ্ছি আমাদের অফিস ঠিক সেই সময়ই অন্যদিকে চলছে আমাদের আপকামিং ফিল্ম ভাঙ্গাবাড়ির ফটোশুট। নিখিলবাবুকে বেশ লাগছে কিন্তু ধুতি পাঞ্জাবিতে, স্যার নিখুঁত দক্ষতার সঙ্গে মেকআপে শেষ তুলি বোলাচ্ছেন শুটের আগে।

স্যার নিখুঁত ধক্ষ্যতার সঙ্গে মেকআপে শেষ তুলে বোলাচ্ছেন শুটের আগে

৯ই জানুয়ারি

আজ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ডিসিশান নেওয়ার ছিল, প্রাথমিক পর্যায়ে আমি, স্যার, দেবাশিস ও প্রশান্ত বসলাম মিটিংয়ে এবং পরে মণীষ ও গোপাল যোগ দিল আমাদের সঙ্গে। 

গোপালের একটা attitude ভীষণ ভালো লাগে। যেটা হল, যে কোন পরিস্থিতিতে ও টিমের সঙ্গে কেমন একটা "দাদা সঙ্গে আছি বুঝে নেবো" টাইপের, আর অন্যদিকে মণীষ ঠিক ততটাই স্থিতধী।

দুপুর ২টো ( PVB রেকর্ডিং স্টুডিও ) 

কিছু অডিও আর ওয়েবসাইট নিয়ে কাজ করছি, হঠাৎ কি মনে হওয়ায় একবার ফিল্ম সাবমিশনের স্ট্যাটাসটা চেক করতে গেলাম, বাঃ  এ তো দারুন ব্যাপার! আমাদের অষ্টম ব্যাড এন্ড বিউটিফুল ওয়ার্ল্ড ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ছবি দেখা  Honourable Mention পেয়েছে Student Impact Film Festival এ সুদূর অ্যামেরিকার নিউইয়র্ক শহরে।

 

এবং একই সঙ্গে দেখা ও দূরবীন অফিসিয়ালি সিলেক্টেড হয়েছে First-Time Filmmaker Sessions @ Pinewood Studios

 

প্রতিদিন প্রয়াসম্‌ প্রণামে জ্যোতিনগরের আহ্লাদী দলের রাজ এবং তার সঙ্গীদের কোরিওগ্রাফি দেখে উৎসাহ বেড়ে গিয়েছিল আরো ছবি বানানোর, প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি অষ্টম ব্যাড এন্ড বিউটিফুল ওয়ার্ল্ড ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে আমরা বানিয়েছিলাম অ্যান্থলজি রেশ .... সেমসেক্স রিলেশনের উপর ভিত্তি করে ৮টি স্বল্প দৈর্ঘ্যের ছবি, রেশ রাজেদের মনে দাগ কাটে এবং ওরা প্রতিদিন প্রয়াসম্‌ প্রণামের নাচের কম্পিটিশান 'নাচ উঠি সংসার'-এ ওই একই থিমের ওপর একটি কোরিওগ্রাফি প্রেজেন্ট করে জিতে নেয় প্রথম পুরস্কার।

Dekha , Honourable Mention

১০ই জানুয়ারি 

 

আজ সোশ্যাল মিডিয়া সেক্টর থেকে আমাদের নতুন সিনেমাটোগ্রাফারদের ট্রেনিং শুরু হল। মণীষ আজ প্রায় পুরো প্রথমার্ধ জুড়ে ভিডিওগ্রাফির ট্রেনিং করালো প্রিয়া, বর্ষা, মঞ্জু ও সঙ্গীতাকে। 

যে গতিতে মণীষ আর আমনের কাজ বাড়ছে তাতে এই মুহূর্তে আরো কয়েকজন সম্পূর্ণ প্রফেশনাল হ্যান্ড তৈরি হলে ওদের সুবিধা হয়। 

এমনিতেই আমরা ভাবছি সম্পূর্ণ নতুন কিছু শো নিয়ে আসবো সিভিএনএন-এর তরফ থেকে।

১১ই জানুয়ারি

 

আজ সন্ধ্যা ৬টায় একটা গুরুত্বপূর্ণ মিটিং সেরে ফেললাম এবারের শনিবারের শোনাবেলার বিজয়ীদের সঙ্গে বসে, কি ভাবে এবং কবে থেকে শনিবারের শোনাবেলা শুরু হবে, কি নিয়ম রাখা উচিত এই সব খুঁটিনাটি নিয়ে বেশ বিশদে আলোচনা হল। আগামীকাল  গভর্নিং বডির মিটিংয়ের জন্য প্রায় তৈরি হয়ে থাকলো খসড়া, দেখি বোর্ডে কি কি পাস করিয়ে নিতে পারি।

ss meeting

১২ই জানুয়ারি 

 

ধন্যবাদ কৌশিক কে , নিজে থেকে এগিয়ে এসে ভবানীপুরে আবারও একটা দুর্দান্ত বাড়ি ঠিক করে দিল Prayasam Visual Basics টিম কে , আমরা আমাদের আস্তরণ ছবিটি ওই বাড়িতেই শুট করবো ।

 

১৩ই জানুয়ারি 

 

যে যাই বলুক উত্তর কলকাতার একটা আলাদা চার্ম আছে । গ্রীস থেকে প্যারিস যেখানেই যাওনা কেন উত্তর কলকাতার মত গলি , আভিজাত্য , আড্ডা তুমি পাবেনা ।
এই বছর ভাঙ্গাবাড়ি ছবিতে স্যার কে Assist করছে "মনা" থুক্কি স্নেহাশিস , এবং ওই আমাদের খুঁজে দিল রাজবল্লভ পাড়ার ১৯৫২ সালে তৈরি একটি বাড়ি , যেখানে আজকে চুটিয়ে শুটিং করা হল  ।

 

 

 

No comments exist

 

১ লা জানুয়ারি ২০২৩

গতকাল সবে শেষ হয়েছে প্রতিদিন প্রয়াসম প্রণাম। প্রসঙ্গত জানিয়ে রাখি এই বছর আমাদের এই অনুষ্ঠানের বয়স হয়ে গেলো ৫ বছর।
আজ থেকে বছর পাঁচেক আগেও প্রয়াসমের একটা প্রথা চলতো ডিসেম্বর মাস জুড়ে - মাসব্যাপী খেলা, সারা মাস জুড়ে সবাইকে খেলতে হবে, ওই অফিসে এসে কাগজ কলম নিয়ে বসে পড়লাম বা কম্পিউটার খুলে কাজ শুরু করলাম তা চলবে না। কি থাকতোনা সে খেলাতে ক্রিকেট, ফুটবল, হাডুডু তো ছিলই, তার সঙ্গে নানা রকম লিডারশিপ গেম।

এইরে, আবার পুরোনো স্মৃতি লিখে ফেলছি।
মণীষ বলেছে শুধুমাত্র একসপ্তাহের একটা সংক্ষিপ্ত বিবরণ লিখতে এবং তাতে কিছু বর্তমান ছবি দিতে ।

যাই হোক এখন অবশ্য বছরের একটা দিন আমরা খেলি,  তবে সেটা সারা মাস জুড়ে নয় ।


গত পাঁচ বছর একমাস ধরে যেটা হচ্ছে সেটা হল প্রতিদিন প্রয়াসম্ প্রণাম।

একমাস ধরে কলাঞ্জলিতে চলে আমাদের এই অনুষ্ঠান। কলাঞ্জলি অর্থাৎ আমাদের আর্ট স্পেসে। এখানে সারা বছর নানান রকম প্রশিক্ষণ চলে ছাত্র ছাত্রীদের জন্য সেটা স্প্যানিশ গিটার হোক কিংবা নাচ, আঁকা, নাটক ইত্যাদি। আর ডিসেম্বারে চলে একমাস ব্যাপী অনুষ্ঠান যেখানে নানান প্রতিষ্ঠিত এবং উঠতি শিল্পীদের একটা সুযোগ করে দেওয়া হয় তাঁদের আর্ট ফর্মকে সাধারণ মানুষের সামনে তুলে ধরার।

সকাল ১১ টা

আজ একটু হালকা মেজাজেই এসে বসলাম ওপেন স্পেসের বেঞ্চে। দেখি স্যার ইতিমধ্যেই রেডি হয়ে গিয়েছেন।

 

Sir , Manish & Alapi
Sir , Manish & Alapi

প্রয়াসমের এটা আর একটা প্রথা .....
যে যেখানেই থাকি না কেন বছরের প্রথমদিনে দেখা করা এবং একসঙ্গে খাওয়া। স্যার বিশ্বাস করেন যে
"A family who eats together , stays together"

তাই সেটা পয়লা বৈশাখ হোক বা জানুয়ারি একসঙ্গে খাওয়াটা এখন আমাদের অন্যতম প্রথা।

আজ প্রসাদ আমাদের জন্য নানান রকমের খাবারের আয়োজন করেছিল।
আজকের BRUNCH এর মেনুতে ছিলো Caponata / Horiatiki / Lime Potatoes / Rosemary Chicken / Sticky Rice and Bread / 2 types of Cake [Chocolate Zebra Cake + Orange Cake] / Chana Chakli / Sangria

বছরের প্রথম দিনে কৌশিক, চেতন  ও স্নেহাশীষ এসে আমাদের সঙ্গে যোগ দেওয়াতে আনন্দটা বেশ কয়েকগুন বেড়ে গেলো।

 

 

২ রা জানুয়ারি ২০২৩

আজ আর আমার কথা বেশি না লিখে একবার শুনে নিই আমাদের চালিকা শক্তি, আমার মেন্টর শ্রী অম্লান কুসুম গাঙ্গুলী কি বললেন মণীষকে তাঁর উপলব্ধি প্রতিদিন প্রায়াসম্‌ প্রণাম নিয়ে।

 

৬ ই জানুয়ারি ২০২৩

আজ The Telegraph এ বিরাট করে বেরলো বালাই ষাট এর কথা। বালাই ষাট সম্পর্কে আমি পরে লিখবো এখন আপাতত The Telegraph এর লেখাটা এখানে পোস্ট করে রাখি বরঞ্চ ।

The Teleghaph , Balai Sath